মহেশপুরে স্বামীর অত্যাচারে সন্তানসহ ঘরছাড়া বীরমুক্তিযোদ্ধার মেয়ে

১৪

মহেশপুর সংবাদদাতা

ঝিনাইদহের মহেশপুরে বীরমুক্তিযোদ্ধার মেয়েকে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে তার স্বামী। উপায় না পেয়ে নির্যাতিতা তার শিশুসন্তানকে নিয়ে বাবার বাড়িতে উঠেছে।

জানা যায়, উপজেলার সামন্তা চারাতলাপাড়া গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা ইউসুফ আলীর মেয়ে শারমিন আক্তারের সঙ্গে ২০১৫ সালে একই জেলার কালীগঞ্জ থানার তালেশ্বার গ্রামের দাউদ হোসেনের ছেলে রানা আলীর বিয়ে হয়। তাদের একটি তিন বছরের কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর শারমিনের বাবা রানা আলীকে যৌতুক হিসেবে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও ফার্নিচারসহ প্রায় সাড়ে ৭ লাখ টাকা প্রদান করে। ১২ সেপ্টেম্বর সকালে রানা ও তার মা-বাবা আবারো পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। শারমিন যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে রানা ও তার মা-বাবা একত্রিত হয়ে শারমিনকে মারধর করেন।

শারমিন বলেন, আমার স্বামী ও শ্বশুর-শাশুড়ি শরিয়ত বিরোধী শিরকী কর্মকা-ের সাথে জড়িত এবং ভ-পীর বাবা ভক্ত, নেশাগ্রস্ত, মাদক ব্যবসায়ী ও যৌতুক লোভী। আমার স্বামী ও শ্বশুর-শাশুড়ি যৌতুকের টাকার জন্য আমাকে মারধর করে ঘরে আটকে রাখে। আমার বাবা মা যৌতুক দিতে ব্যর্থ হওয়ায় ১৪ সেপ্টেম্বর সকালে আমার স্বামী আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। বর্তমানে শারমিন তার শিশু কন্যাকে নিয়ে বাবার বাড়িতে মানবেতর জীবনযাপন করছে।

এ ব্যাপারে শারমিন বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ঝিনাইদহ আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।
মহেশপুর থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পাওযা গেছে। দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

মন্তব্য
Loading...