ডুমুরিয়ায় তালাকপ্রাপ্ত স্বামীর ছুরিকাঘাতে গৃহবধূ নিহত

৪৪

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি 

খুলনার ডুমুরিয়ায় তালাকপ্রাপ্ত স্বামীর ছুরিকাঘাতে পারভীন বেগম (৩৮) নামের এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার রাতে উপজেলা সদরে মহিলা কলেজের পশ্চিম পাশে ফকির বাড়ি এলাকায় এ মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ডটি ঘটে। এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে নুরজাহান বেগম থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলা সদরে মৃত কিনু মোল্যার ছেলে বহুবিয়ের নায়ক ঘাতক লিটন মোল্যা তৃতীয় স্ত্রী হিসেবে বাহাদুরপুর এলাকার মান্নান শেখের মেয়ে পারভীনকে বিয়ে করে। বিয়ের কিছুদিন যেতে না যেতেই পাষন্ড স্বামীর নির্যাতনে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। কিন্তু বিচ্ছেদের পরেও লিটন তার পিছু ছাড়ে নাই। প্রায়ই সময় তাকে খুন জখমের হুমকি দিয়ে আসছিল। উপায়ন্ত না পেয়ে পারভীন বেগম তার আট বছর বয়সী নুপর নামের শিশুকন্যা নিয়ে সামছুর আলী (ফকির বাড়ি) ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছে এবং পেশা হিসেবে ইটভাটা শ্রমিক ও দিনমজুর হিসেবে জীবিকা নির্বাহ করতে থাকে। ভাড়া বাড়িতে থেকেও তালাকপ্রাপ্ত স্বামীর হাত থেকে রেহাই পেল না পারভীন। ঘটনার রাতে লিটন সামছুর শেখের স্ত্রী সালমা (ফকির)’র অরক্ষিত ভাড়া বাড়িতে প্রবেশ করে দরজা ভেঙ্গে পারভীনের শয়ন কক্ষে ঢুকে তার মুখ বেঁধে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করে।

বাঁচার জন্য পারভীন রক্তাক্ত অবস্থায় ছুটে পালানোর চেষ্টা করলে তাকে ঝাপটে ধরে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত ও লাঠির আঘাতে সে জ্ঞান হারা হয়ে মাটিতে লুটে পড়ে। এরপর তার মৃত্যু নিশ্চিত ভেবে লিটন পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা ওই রাতে তাকে মূমুর্ষূ অবস্থায় উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।ঘটনা প্রসঙ্গে ওসি ওবাইদুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শণ ও ঘটাস্থল থেকে ১টি ছুরি ও ১টি শাবল উদ্ধার করা হয়েছে।

মন্তব্য
Loading...