নড়াইলে চুরি হওয়া ড্রেজার মেশিন উদ্ধার

0 ১৩

নড়াইল প্রতিনিধি

নড়াইল পুলিশের তৎপরতায় প্রায় সাড়ে ৩ মাস আগে চুরি হওয়া ড্রেজার মেশিন খুলনা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। আনলোড ড্রেজার মেশিনটি উদ্ধার হওয়ায় মালিক শহীদুল ইসলাম বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতি থেকে রক্ষা পেলেন।

পুলিশ ও ড্রেজার মালিক নড়াইলের কালিয়া উপজেলার পিরোলী গ্রামের বাসিন্দা শহীদুল ইসলাম জানান, খুলনা জেলার বাটিয়াঘাটার বারোভূঁইয়া গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে মিজান চুক্তিপত্রের মাধ্যমে চলতি বছরের ৫ মার্চ আনলোড ড্রেজারটি তার কাছ থেকে ভাড়া নেন। ড্রেজারটি ভাড়া নেয়ার পর থেকে মালিক শহীদুল চুক্তি অনুযায়ী ভাড়ার টাকা চাইলে টাকা না দিয়ে নানা তালবাহানা শুরু করে মিজান।

একপর্যায়ে চুক্তিপত্রটি ড্রেজার মালিক শহীদুল ইসলামের কাছ থেকে জোরপূর্বক কেড়ে নেয় মিজান ও তার সহযোগীরা। ভাড়ার টাকা না দেয়ায় মালিক ড্রেজার মেশিনটি ফেরত চাইলে মিজান প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে গত ৭ এপ্রিল শহীদুলকে জানান ড্রেজারটি নড়াইল সুলতান ব্রীজের দক্ষিণ-পশ্চিম পার্শ্বে রাখা আছে। সেখানে শহীদুল গিয়ে ড্রেজারটি না পেয়ে মিজানকে জানালে তিনি জানান, আপনার ড্রেজারটি চুরি হয়ে গেছে। পরবর্তীতে অনেক খোঁজাখুঁজির পর ড্রেজার মালিক জানতে পারেন মিজান ৫০ হাজার টাকা অগ্রিম নিয়ে ড্রেজারটি খুলনার সেনেরবাজারের হাফিজের কাছে ভাড়া দিয়েছে। কোন উপায় না পেয়ে ড্রেজারটি উদ্ধারে মালিক শহীদুল গত ১৯ মে নড়াইল সদর আমলী আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালতের নির্দেশে ২০ মে মামলাটি নড়াইল সদর থানায় এজাহারভুক্ত হয়। মামলা দায়েরের পর ড্রেজারটি উদ্ধারে ব্যাপক তৎপরতা শুরু করে পুলিশ। নড়াইল পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায়ের নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানজিলা সিদ্দিকা ড্রেজারটি উদ্ধারে ব্যাপক তৎপর হয়ে উঠেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নড়াইল সদর থানার এসআই আব্দুস সালাম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন ড্রেজারটি খুলনার আইচগাতি ইউনিয়নের সেনেরবাজার মসজিদের পাশে নদীতে রয়েছে। এ সংবাদের ভিত্তিতে নড়াইল সদর থানার ওসি (অপারেশন) শিমুল কুমার দাস, এসআই আব্দুস সালামসহ একদল পুলিশ ও আইচগাতি পুলিশ ক্যাম্পের সদস্যদের জোর চেষ্টায় চুরি হওয়া ড্রেজার মেশিনটি গত ৭ জুন দুপুরের দিকে পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মিজান ও তার দুই সহযোগী হাফিজ ও সোহেল পালিয়ে যায়।

মন্তব্য
Loading...