ডিপিএলে যশোরের টিপু সুলতানের কৃপণ বোলিং

0 ১৩৪

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সোমবার শুরু হয়েছে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে জৌলুস ও মর্যাদাপূর্ণ আসর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল)। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের এবারের আসরে বিভিন্ন ক্লাবে যশোরের চার ক্রিকেটার প্রতিনিধিত্ব করছেন। এর মধ্যে প্রথম দিনে মাঠে নামার সুযোগ হয় দুই জনের।

প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে উইকেটকিপার ইমরানুজ্জামান ও খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতির হয়ে খেলেন বাঁহাতি স্পিনার টিপু সুলতান। বৃষ্টির কারণে ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়ে যাওয়ায় ব্যাট হাতে মাঠে নামার সুযোগ পাননি ইমরান। তবে উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়ে ধরেছেন একটি ক্যাচ।

অপরদিকে টিপু সুলতান প্রথম ম্যাচে করেছেন কৃপণ বোলিং। এছাড়া শেষ দিকে ব্যাট হাতে নেমে ৭ বলে একচারে অপরাজিত ছিলেন ৯ রানে। তিন ওভার বল করে যদিও কোন উইকেটের দেখা পাননি। তবে তিন ওভার থেকে দিয়েছেন মাত্র ১৬ রান। তার করা ১৮টি বলের মধ্যে ১১টি থেকে কোন রান নিতে পারেননি প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানরা। মেরেছেন ১টি চার ও ১টি ছয়। তিন ওভারের দুই ওভারই করেছেন পাওয়ার প্লেতে। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই টিপুর হাতে বল তুলে দেন দলীয় অধিনায়ক জহিরুল ইসলাম অমি। প্রথম ওভারে দেন মাত্র একরান। প্রথম ওভারের চারটি বল খেলেন জাতীয় দলের সাবেক হার্ডহিটিং ব্যাটসম্যান আশরাফুল। দলীয় চতুর্থ ওভারে আবারও বল হাতে নিয়ে দেন মাত্র ৭ রান। নিজের শেষ ওভারে দেন ৮ রান। এই ওভারে উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহানের কাছে একটি ছক্কা হজম করেন।

টিপু কৃপন বোলিং করলেও মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে তার দল ২২ রানে হেরেছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের কাছে।

প্রথমে ব্যাট করা শেখ জামাল নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৬ রান করে। জবাবে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৪ করতে পারে খেলাঘর। ১৬৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারানো খেলাঘরের হয়ে কেউই বড় স্কোর করতে পারেননি। সর্বোচ্চ ২৬ রান করেন ওপেনার ইমতিয়াজ হোসেন।
শেখ জামালের হয়ে ৪ ওভারে ১৮ রান দিয়ে ৩ উইকেট পাওয়া স্পিনার ইলিয়াস সানি ম্যাচ সেরা হন। এছাড়া আবুল হালিম ও সালাউদ্দিন শাকিল ২টি উইকেট পান।

টসে জিতে এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার সৈকত আলী ও মোহাম্মদ আশরাফুলের সমান ৩৮ রানে ভর করে দলীয় দেড়শর ওপর সংগ্রহ পায় শেখ জামাল। সৈকত ২৬ বলে ৪টি চার ও ২টি ছক্কায় এই রান করেন। আর আশরাফুল ৩২ বলে ৬টি চারে নিজের ইনিংস সাজান। অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান ২২ রানে অপরাজিত থাকেন। খেলাঘরের খালেদ আহমেদ ২টি এবং রিশাদ হোসেন ও মাসুম খান একটি করে উইকেট পান।

মন্তব্য
Loading...