সরকারি নির্দেশ বাস্তবায়নে কর্তৃপক্ষের নট নড়নচড়ন

0 ২৮

সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে যাত্রী নেয়ার প্রতিবাদ করায় একই পরিবারের চারজনকে বাস শ্রমিকরা বেধড়ক মারধর করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বরিশাল নগরীর রূপাতলী বাসস্ট্যান্ডে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় মারধরের শিকার ওই পরিবারের সঙ্গে থাকা সাত বছরের এক শিশুকে বাসের জানালা থেকে ছুড়ে ফেলে দেয়ার অভিযোগও পাওয়া গেছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন রূপাতলী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাওছার হোসেন শিপন। মারধরের শিকার চারজন হলেন, মঠবাড়িয়া উপজেলার টিকিকাটা গ্রামের শামীম সিকদার (২৭), তার মা হাসনুর বেগম (৫৫), ভাগ্নের স্ত্রী কারিমা ও কারিমার মেয়ে মুনিয়া (৭)।

সাধারণ সময়ে বরিশাল থেকে মঠবাড়িয়ার ভাড়া ১৫০ টাকা। কিন্তু, করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস চলাচল করায় সরকার নির্ধারিত ২৪০ টাকা করে ভাড়া আদায় করা হয়। নিয়ম হচ্ছে, এক সিট খালি রাখা। কিন্তু ওই বাসটির সুপারভাইজার এক সিট তো ফাঁকা রাখছেনই না, বরং আরও যাত্রী তুলছিলেন। এর প্রতিবাদ করলে বাসের সুপারভাইজার, হেলপারসহ বাসস্ট্যান্ডের ১৫ থেকে ২০ জন শ্রমিক মিলে বাসের সিটেই তাদেরকে মারধর করে এবং সাত বছরের মেয়ে মুনিয়াকে জানালা থেকে ছুড়ে নিচে ফেলে দেয়। এ দৃশ্য সর্বত্র। সরকারি নির্দেশ যারা অমান্য করছে তারা সরকারেরই বিরোধীতা করছে। অথচ সরকারিভাবে তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।

করোনাকালে সরকারি ঘোষণার সাথে বাস্তবতার বড্ড অমিল দেখা যাচ্ছে, যা প্রতিনিয়ত গণমাধ্যমে প্রকাশ হচ্ছে। কিন্তু আশ্চর্যজনক হলেও সত্যি যে এ নিয়ে কর্তৃপক্ষের কোন মাথা ব্যথা নেই।এ নিয়ে ভুক্তভোগী জনগণ মন্তব্য করছে, লকডাউনে পরিবহন মালিকদের যে ক্ষতি হয়েছে তা কর্তৃপক্ষ অঘোষিতভাবে জনগণের পকেট কেটে পুষিয়ে দিচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে যাত্রীদের বলার অনেক কিছু থাকলেও পরিবহন শ্রমিকদের হিং¯্র আচরণের কারণে তারা কিছু বলতে পারছে না। কেউ যদি প্রশ্ন করেন, ভাড়া বেশি নিচ্ছ কেন? তার উত্তরে শ্রমিকরা বলছে, সরকার নিতে বলেছে তাই নিচ্ছি। কিন্তু সরকার তো একথাও বলেছে, যাত্রী অর্ধেক নিতে হবে। কোন যাত্রী এমন প্রশ্ন তাকে নিগৃহীত হতে হচ্ছে। এতেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নট নড়নচড়ন।

কবির কথায় বলতে হয়, ‘অদ্ভুত উঠের পিঠে চলেছে স্বদেশ আমার।’ আমরা চাই সরকারি নির্দেশ কড়াকড়িভাবে মানানোর ব্যবস্থা করে গণপরিবহন চালানোর ব্যবস্থা করা হোক। নতুবা স্বাস্থ্যবিধি নামক কথাটি তুলে নিয়ে আগের মত গণপরিবহন চালানোর নির্দেশনা দেয়া হোক। এমন অনিয়মের মধ্যে কোন কিছু চলতে দেয়া কোনক্রমেই ঠিক না।

মন্তব্য
Loading...