জীবননগরে ব্যস্ততম সড়কে কাদামাটিতে এলাকাবাসী নাকাল

0 ৮৮

রমজান আলী, জীবননগর

চুয়াডাঙ্গার জীবননর-যাদবপুর অভ্যন্তরীণ সড়ক নদী খননের কাদা-মাটিতে চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এ রাস্তায় প্রতিদিন ঘটছে দুর্ঘটনা। ব্যস্ততম সড়কে কাদা-মাটিতে নাকাল এলাকাবাসী রাস্তা থেকে মাটি অপসারণের দাবি জানিয়েছেন।

জীবননগর উপজেলা শহর থেকে সীমান্ত ইউনিয়নের র‌্যস্ততম সংযোগ সড়কগুলোর অন্যতম যাদবপুর সড়ক। এ সড়কের পাশ দিয়ে প্রবাহমান করতোয়া নদীটি সরকার সম্প্রতি খনন করেন। নদী খননের পর অবশিষ্ট মাটি ঠিকাদার রাস্তায় ফেলে রাখায় ওই রাস্তা দিয়ে পথচারী ও যানবাহন চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়ে। নদী খননের সময় ধুলোবালি এলাকাবাসীর নিত্যসঙ্গী হলেও কয়েকদিনের বৃষ্টিপাতে কাদামাটিতে ভরে যাওয়ায় সড়ক দিয়ে যাতায়াত করা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে যাদবপুর-বেনীপুর ভায়া কয়া রাস্তায় নদী খননের মাটি স্তূপের কারণে বৃষ্টির পানিতে রাস্তাটি কাদামাটিতে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এলাকাবাসীকে মাত্র দশ মিনিটের রাস্তা এক ঘন্টা সময় ব্যয় হচ্ছে।

সরজমিনে দেখা যায়,যাদবপুর-বেনীপুর ভায়া কয়া রাস্তায় পানিকাদা জমে আছে। তা যে কেউ দেখে মনে করবেন ধান রোপণের জন্য জমি প্রস্তত করা হয়েছে। অন্যদিকে জমে থাকা কাদাপানির সাথে আবর্জনা পঁচে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়েছে। সদ্য সংস্কার হওয়া রাস্তর এমন অবস্থা এলাকাবাসীকে বিক্ষুব্ধ করে তুলেছে। এ রাস্তায় প্রতিদিন মানুষকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলতে হচ্ছে।

সজল হোসেন নামের এক অটোরিকশা চালক বলেন, আমরা প্রতিনিয়তই এই রাস্তা দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে যাতায়াত করছি। ব্যস্ততম এ রাস্তাটি একে তো সরু,তারপর আবার নদী খননের মাটি ফেলে চলাচলের অনুপযোগী করে ফেলেছে। এ রাস্তা দিয়ে চলাচল বর্তমানে অত্যন্ত ঝুঁকিপুর্ণ হয়ে পড়েছে।

স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী বলেন, রাস্তাটি এক-দেড় বছর আগে পিচকরণ হলেও নদী খননের মাটি রাস্তায় ফেলে রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। রাস্তাটি বর্তমান যে অবস্থা তা আমাদের জন্য মৃত্যু ফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই মুহূর্তে আমি মারা গেলে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে এ রাস্তা দিয়ে প্রশাসনের লোকজনকে আমার বাড়িতে যেতে অনেক কষ্ট ভোগ করতে হবে।

সীমান্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ময়েন উদ্দিন বলেন, নদী খননের মাটি রাস্তায় পড়ে স্তূপ জমে রাস্তাটি চলাচলের জন্য অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। তবে রাস্তাটি সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ দরপত্র আহ্বান করেছেন বলে জেনেছি। খুব শিগগিরই শুনছি কাজ শুরু হবে।

জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম মুনিম লিংকন বলেন, ইতিমধ্যেই রাস্তায় জমে থাকা মাটি সরিয়ে ফেলতে কর্তৃপক্ষকে বলা হয়েছে। তারা দ্রুতই রাস্তা থেকে মাটি সরিয়ে নেবেন বলে জানিয়েছেন।

মন্তব্য
Loading...