বেনাপোল দাপিয়ে বেড়াচ্ছে প্রতারক সুমন ও জাহিদ!

১,২১২

নুরুল কবির

বেনাপোলে বিভিন্ন পরিচয়ে দুই প্রতারক ও চাঁদাবাজের দৌরাত্ম্য দিন দিন বেড়ে চলেছে। কখনো সাংবাদিক কখনো পুলিশের সোর্স পরিচয়ে বিভিন্ন জায়গায় এরা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। শুধু চাঁদাবাজি না এদের বিরুদ্ধে সম্প্রতি সরকারি কর্মকর্তাদের স্বাক্ষর জাল করে লাইসেন্স তৈরি ও শুল্কফাঁকিতে সহযোগিতার অভিযোগ রয়েছে। কিছুদিন আড়ালে থাকলেও বর্তমানে এরা আবারো একটি চক্রের মদদে মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বন্দরনগরী বেনাপোল শহরে নামধারী কিছু টাউট প্রকৃতির বখাটে অনলাইন পত্রিকার কার্ড ম্যানেজ করে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে এলাকাজুড়ে। এরা সকাল হলেই মোটরসাইকেল নিয়ে বিভিন্ন ইটভাটা আর মানুষের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে ভয়ভীতি দেখিয়ে অর্থ আদায় করছে। এ চক্রের দুই হোতা জাহিদ ও সুমন। এ দুই প্রতারক একের পর এক অপরাধ করলেও রহস্যজনক কারণে প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি সাজেদুর রহমান জানান, কাস্টমস কমিশনারের স্বাক্ষর জাল করে লাইসেন্স তৈরি করতো সুমন। তাকে ধরে ১০ হাজার টাকা অর্থদ- করা হয়। তার থেকে সাবধান থাকা উচিত।

এদিকে সুমন ও জাহিদের নামে রয়েছে একাধিক চাঁদাবাজির অভিযোগ। কিছুদিন আগে চাঁদাবাজির অভিযোগে জাহিদ ও সুমনকে বাহাদুরপুর এলাকায় জনগণ ধোলায় দিয়ে আটকে রাখে।

বেনাপোল পৌর যুবলীগ নেতা নাসীর উদ্দীন বাবু জানান, সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে এরা দীর্ঘদিন অসহায় মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছে। এতে প্রকৃত পেশাদারি সংবাদকর্মীদের সম্মান নষ্ট হচ্ছে। এসব টাউটদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের নজর দেওয়া উচিত।

মন্তব্য
Loading...