সাতক্ষীরার শীর্ষ প্রতারক বাদশা অস্ত্রসহ আটক

0 ১৮

সাতক্ষীরা অফিস

সাতক্ষীরায় প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিবসহ বিভিন্ন দপ্তরের নকল নোটপ্যাড, সিল ও জালিয়াতি কাগজপত্রসহ এসএম বাদশা মিয়া নামে রিজেন্টের শাহেদের মতো আরেক শীর্ষ প্রতারককে অস্ত্রসহ আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে শহরের বাইপাস সড়কের শহিদুল ইসলামের মুদি দোকানের পাশ থেকে তাকে আটক করা হয়। এ সময় তার দেয়ার তথ্যের ভিত্তিতে দোকানের ভেতর থেকে একটি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। আটক বাদশা মিয়া শহরের পলাশপোল এলাকার হাতুড়ে ডাক্তার নূর ইসলামের ছেলে।

সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান ব্রিফি-এ সাংবাদিকদের জানান, আন্তঃজেলা প্রতারকচক্রের প্রধান বাদশা মিয়ার কোন বৈধ পেশা নেই। প্রতারণা করে মানুষের কাছ থেকে অর্থ আদায় করাই তার মূল ব্যবসা ও পেশা। তিনি কোন ডাক্তার না হয়েও নিজেকে ডা. এসএম বাদশা মিয়া, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও চেয়ারম্যান, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পিএস, প্রধানমন্ত্রীর মামলা পরিচালনাকারী, এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের পরিচালক, ক্ষমতাশীন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতা, বিভিন্ন মন্ত্রী ও এমপির পরিচয় দিয়ে তাদের সিল, প্যাড, ডিও লেটার, বাণী ইত্যাদি ব্যবহার করে নিরীহ মানুষকে চাকরি পাইয়ে দেয়া, চাকরিতে পদোন্নতি, বদলি, মামলার রায় পাইয়ে দেয়া, জমিজমা উদ্ধার ও দখল ইত্যাদির প্রলোভন দেখিয়ে মানুষের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন এই মহাপ্রতারক। এসব কাজের জন্য তিনি দেশি ও বিদেশি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি- প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রী, এমপিসহ অনেকের ছবি সংগ্রহ করে তাদের ছবির সাথে নিজের ছবি লাগিয়ে (এডিট করে) নিরীহ মানুষের কাছে নিজেকে বিশ^াসযোগ্য ও প্রভাবশালী হিসেবে উপস্থাপন করতেন। সরকারের প্রভাবশালী আমলা, প্রভাবশালী পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছে মিথ্যে পরিচয়ে তদবির করতেন এবং তদবির না শুনলে বদলি বা চাকরিচ্যুতির হুমকি দিতেন। বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি পরিচয় দিয়ে দেশের প্রতিটি জেলায় ও উপজেলায় কমিটি গঠন করে তাদের কাছ বিপুল অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন।

তিনি জানান, শনিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে শহরের বাইপাস সড়ক সংলগ্ন জনৈক শফির মুদি দোকানের সামনে থেকে প্রতারক বাদশা মিয়াকে আটক করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি পিস্তল, দুই রাউন্ড গুলি, ৩টি জাল সিল উদ্ধার করা হয়। সিলগুলোতে ১. শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি, ২. এসএম বাদশা মিয়া, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, ৩. ডা. মোস্তফা জামান, সাধারণ সম্পাদক বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পাঠাগার কেন্দ্রীয় কমিটি লেখা রয়েছে। পুলিশ প্রধানের কাছে লেখা শেখ সালাউদ্দীন জুয়েলের একটি ডিও লেটার, প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিবের অফিসিয়াল নোটপ্যাড একটি, মানবাধিকার প্রতিদিন পত্রিকার স্টিকার একটি, ভুয়া ওয়ারেন্ট ২৫টি, মসজিদের চাঁদা আদায়ের রশিদ বই ২০টি, আদায় করা চাঁদার ৬৮ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন আলামত জব্দ করা হয়। প্রেসব্রিফিং-এ তিনি আরো জানান, এ সময় তার সহযোগী সাগর নামের আরো একজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনের মামলাসহ মোট ৫টি মামলা রয়েছে।

এদিকে সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার সম্পর্কে ফেসবুকে মিথ্যা ও ভুয়া তথ্য উপস্থাপনকারী শীর্ষ প্রতারক এসএম বাদশা মিয়ার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে সাতক্ষীরায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সুলতানপুর বড়বাজার ব্যবসায়ী সমিতি আয়োজনে শনিবার বেলা ১১টার দিকে বড়বাজার ব্রিজের ওপর এ মানববন্ধন হয়।

সুলতানপুর বড়বাজার মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আ স ম আব্দুর রবের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য দেন সংগঠনটির সহসভাপতি আমিনুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলিম, কাঁচাবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বাবু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রওশন আলী, যুগ্মসম্পাদক রজব আলী, মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির অর্থ সম্পাদক সাহেব আলী, মৎস্য ব্যবসায়ী শাহ আলম, ব্যবসায়ী গোলাম মোস্তফা খোকন প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্মসম্পাদক ও ব্যবসায়ী রাশিদুজ্জামান রাশি।

মন্তব্য
Loading...