করোনার সেকেন্ড ওয়েভ মোকাবিলায় মাস্ক ব্যবহার করুন

0 ১৫

‘স্বাস্থ্যবিধি মানতে অনীহা, করোনা সংক্রমণ আবার ঊর্ধ্বমুখী’ এমন একটি উদ্বেগজনক খবর ১১ নভেম্বর প্রকাশ হয়েছে দৈনিক প্রতিদিনের কথায়। পাশাপাশি আরো দুটি খবর প্রকাশ হয়েছে একই দিনের পত্রিকায়। এর একটিতে বলা হয়েছে, ‘কঠোর অবস্থানে প্রশাসন, যশোর জেলায় ৯১ জনকে জরিমানা।’ অন্যটি হলো, ‘মাস্ক নিশ্চিতকরণ, আজ যশোরের দেড় শতাধিক প্রতিষ্ঠানের প্রচারাভিযান।’ করেনাভাইরাস যে মহামারি তাতে আর কোন সন্দেহ নেই কারো। এর ভয়াবহতা নতুন করে ব্যাখ্যা করারও প্রয়োজন নেই।
প্রধানমন্ত্রী ১৯ অক্টোবর গণভবন থেকে ভার্চুয়াল মন্ত্রীসভা বৈঠকে অংশ নিয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণের সম্ভাব্য সেকেন্ড ওয়েব মোকাবিলায় সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পাশাপাশি মাস্ক পরার আহ্বান জানিয়েছেন। ইউরোপ, আমেরিকার বিভিন্ন দেশে করোনার সেকেন্ড ওয়েভের কথা তুলে ধরে বলেছেন, ঘরের বাইরে বের হওয়া মানুষকে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে। কোন অবস্থাতেই কেউ যেন মাস্ক ছাড়া বাইরে না আসে। গত এক বছর ধরে সারা বিশ্ব চষে বেড়িয়েছে এই করোনাভাইরাস। হালে আগ্রাসন কিছুটা কম হলেও আসন্ন শীত মৌসুমে সেকেন্ড ওয়েভ শুরু হবে বলে বিশেষজ্ঞরা আগেভাগে সতর্ক করছেন। ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে করোনা বিস্তার লাভ করতে শুরু করেছে। বাংলাদেশেও করোনা বিস্তার লাভ শুরু করেছে। চলতি মাসের প্রথম দিনে শনাক্ত যা ছিল তা ক্রমেই বাড়ছে। এর কারণ অসর্তকতা। দেশের সরকার প্রধান সতর্কতা অবলম্বনের আহ্বান জানানো সত্ত্বে তা যেন কেউ গা মাখাচ্ছেন না। গণপরিবহনে তো স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই। ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’ কথাটাও তারা মানছে না। মাস্ক বিহীন যাত্রী তোলা হচ্ছে। কোন বাধা নিষেধ নেই। জনসাশারণও মাস্ক ছাড়া পথে চলছে। কিন্তু অসতর্ক থাকা যাবে না। কেননা যখন একটি দুর্যোগ জাতির ঘাড়ে চাপে তখন সেটি দিনক্ষণ দিয়ে চাপে না। যদি প্রতিরোধে করণীয় বিষয়গুলো পালন করা যায় তাহলে করোনাভাইরাস দুর্যোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে।
যদি সবাই মাস্ক ব্যবহারে সচেতন হয় তাহলে অটোমেটিক্যালি এটা থেকে রিলিফ পাওয়া যাবে। করোনাভাইরাস প্রতিরোধের করণীয় বিষয়ে সর্বপ্রথম গণসচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে এবং তাদেরকে করণীয় বিষয়ের সাথে অংশ গ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। অবশ্য ইতোমধ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান মাস্ক নিশ্চিত করার ব্যাপারে প্রচারাভিযানের যে শুভ উদ্যোগ নিয়েছে তা প্রশংসনীয়। প্রশাসন যে কড়াকড়ি ব্যবস্থা নিয়েছে তা যেন অব্যাহত থাকে। জনসাধারণের প্রতি আমাদের অনুরোধ প্রশাসনের শাস্তিমূলক ব্যবস্থার আওতায় না পড়ে সবাই মাস্ক ব্যবহার করুন।

মন্তব্য
Loading...