জীবননগরে পরকীয়ার জেরে সন্তানসহ স্ত্রীকে তালাক

৩৭৮

জীবননগর প্রতনিধি

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার গঙ্গাদাসপুরে পরকীয়া প্রেমিকাকে বিয়ে করতে স্বামী তার চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে এক সন্তানসহ তালাক দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।
জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া ইউনিয়নের অনন্তপুর গ্রামের বজলুর রহমান মোল্যার মেয়ে রেহেনা খাতুন স্বপ্না (৩০) বলেন, আমার বাপ-মা আমাকে ছয় বছর আগে সীমান্ত ইউনিয়নের গঙ্গাদাসপুর এলাকার মন্টু মিয়ার ছেলে মকলেচুর রহমান মুকুলের (৩৮) সাথে বিয়ে দেন। বিয়ের পর আমাদের দাম্পত্য জীবন সুখেই চলছিল। কিন্তু আমার শাশুড়ি খালেদা বেগম ও শ্বশুর মন্টু মিয়ার কুপরামর্শে ব্যবসার টাকা যোগাড়ে আমাকে যৌতুকের জন্য নানাভাবে চাপ দিতে থাকেন। ওই সময় আমার মা-বাবা আমার সুখের কথা চিন্তা করে তাদের হাতে টাকা দেন। আর সেই টাকা দিয়ে ব্যবসা করে তারা অবস্থার উন্নতি করেন। আমার বাবা-মা কয়েক দফায় নগদ দুই লাখ ৮০ হাজার টাকা আমার স্বামী-শ্বশুরকে দেন। বিভিন্ন আসবাবপত্রও দেন। কিন্তু আমার স্বামী মুকুল পরকীয়ায় মত্ত হয়ে আমাকে বিতাড়িত করতে কৌশল হিসেবে আমার নিকট যৌতুক বাবদ আবার এক লাখ টাকা দাবি করে। কিন্তু আমি তাতে রাজি না হওয়ায় মুকুল, শ্বশুর মন্টু ও শাশুড়ি খালেদা বেগম আমাকে ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১১টার দিকে মারপিট করে শিশু সন্তানসহ আমার বাবার বাড়িতে তাড়িয়ে দেয়। এখন শুনছি মুকুল তার পরকীয়াকে বিয়ে করেছে।
জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম বলেন, ঘটনার ব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মন্তব্য
Loading...