নৌকায় ভোট দিন, আধুনিক ইউনিয়ন উপহার দিবো: জহুরুল

২০৯

প্রবীর কুন্ডু, মণিরামপুর : যশোরের মণিরামপুর উপজেলার বৃহত্তর হরিহরনগর ইউনিয়নকে আধুনিক ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলতে চান ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য ও আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মাস্টার জহুরুল ইসলাম। পেশায় মাদরাসা শিক জহুরুল ইসলাম ইউনিয়নের নাগরিক সুবিধাসহ অন্যান্য সমস্যা সমাধানের মাধ্যমে একে আরো আধুনিকায়ন করে গড়ে তুলতে সংকল্পবদ্ধ। দৈনিক প্রতিদিনের কথাকে দেয়া সাাৎকারে তিনি এই কথাগুলো বলেন।
জহুরুল ইসলাম ১৯৮৫ সাল থেকে হরিহরনগর দাখিল মাদরাসায় শিকতা করছেন। ৪ ভাইয়ের মধ্যে দ্বিতীয় জহুরুল ইসলামের রাজনৈতিক ক্যারিয়ারও সমৃদ্ধ। তিনি ১৯৮৭ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত হরিহরনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে পালন করেছেন। এরপর ২০১৪ সাল থেকে তিনি সুনামের সাথে বৃহত্তর হরিহরনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তার সামাজিক কর্মকান্ডও তাকে এলাকায় বেশ জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছে। আর সেই সূত্র ধরেই ১৫ মে অনুষ্ঠিতব্য হরিহরনগর ইউপি নির্বাচনে তিনি চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন।
জহুরুল ইসলাম বলেন, যশোরের মণিরামপুর উপজেলার বন্যাকবলিত হরিহরনগর ইউনিয়ন উন্নয়নের দিক থেকে বরাবরই উপেতি। প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে এ ইউনিয়নের একটি বড় অংশই বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়। রাস্তা-ঘাটের দৈন্যদশা সবসময়ই ভোগায় ইউনিয়নবাসীসহ পথচারীদের। নাগরিক সুযোগ সুবিধাও খুবই সীমিত এখানে। যা ইউনিয়নবাসীকে পিছিয়ে রেখেছে অনেক দিক থেকেই।
এমন অবস্থায় জহুরুলের নেতৃত্বের দিকে ঝুঁকছেন বন্যাকবলিত হরিহরনগর ইউনিয়নবাসী। আর সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ১৫ মের নির্বাচনে আটঘাট বেঁধেই মাঠে নেমেছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবক মাস্টার জহুরুল ইসলাম।
তিনি বলেন, অতীতে যারা চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তারা অজ্ঞাত কারণে খতিয়ে দেখেননি বন্যাকবলিত এ ইউনিয়নের সমস্যাগুলো। চিহ্নিত করেননি কোন এলাকার কোন সমস্যা। আর সেটা করলেও সমাধানের বাস্তবায়ন হয়নি বললেও চলে।
মাস্টার জহুরুল ইসলাম বলেন, নির্বাচিত হলে জনগণের সেবাকেই প্রাধান্য দেবেন। জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার চিহ্নিত করা হবে সকল সমস্যা। সেই সাথে উত্তরণের পথ খুঁজে তা বাস্তবায়নে ইউনিয়নবাসীকেই সাথে রাখতে চান তিনি। বর্তমানে জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা ও বারবার নির্বাচিত সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার গ্রাম বাংলার সার্বিক উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখছেন বলে তিনি জানান।
তিনি হরিহরনগর ইউনিয়নবাসীকে সাথে নিয়েই এর অংশীদারিত্ত্বের ভাগিদার হতে চান। আর এজন্য এলাকায় সৎ ও যোগ্য প্রার্থী হিসেবে সাধারণ ভোটাররা ১৫ মের নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে তাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
এদিকে স্থানীয় আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা জানিয়েছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ হচ্ছে গণমানুষের দল। হরিহরনগর ইউপি নির্বাচনে তাই ভোটারদের স্বতঃস্ফূর্ত সমর্থন আদায়ে ইতোমধ্যেই কাজ শুরু করেছি আমরা।
নেতারা জানান, সম্পূর্ণ নতুন মুখ হিসেবে মাস্টার জহুরুল ইসলাম ধর্ম, বর্ণ ও দলমত নির্বিশেষে হরিহরনগর ইউনিয়নের সবার দৃষ্টি কেড়েছেন। ফলে ১৫ মে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনের মাস্টার জহুরুল ইসলাম নৌকা প্রতীকে বিপুল ভোটে জয়ী হবেন বলে মনে করেন তারা।
২০১১ সালের নির্বাচনের পর পুনারায় ভোট গণনার অভিযোগ তুলে আদালতে একটি মামলা করেন এ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম। দীর্ঘ ৭ বছর চলা এ মামলা সম্প্রতি হাইকোর্টে নিষ্পত্তি হওয়ায় নির্বাচন কমিশন ১৫ মে এ ইউনিয়নের ভোট গ্রহণের তারিখ ধার্য করেন।

মন্তব্য
Loading...