যশোরে দোকানিকে আটকে রেখে চাঁদা দাবি, আটক ১

0 ৭১

নিজস্ব প্রতিবেদক

পাওনা টাকা দেয়ার কথা বলে মোবাইলে ডেকে নিয়ে একটি সংঘবদ্ধ চক্র তালাত মাহমুদ সাবু নামে এক চা-সিগারেট দোকানিকে আটকে রেখে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা করে বলে কোতয়ালি থানায় মামলা হয়েছে। আটকে রেখে তাকে মারপিটও করা হয় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।
মামলায় চারজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৩-৪ জনকে আসামি করা হয়। যাদের মধ্যে পুলিশ শামিম নামে একজনকে আটক করেছে। শামীম শহরের কাজীপাড়া মসজিদ এলাকার বাসিন্দা। মামলার অপর আসামিরা হলো একই এলাকার রিয়াদ, আরবপুরের বিষে ও সাগর।
যশোর সদর উপজেলার ইছালী ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের তাইজুল ইসলামের ছেলে তালাত মাহমুদ সাবু মঙ্গলবার সকালে মামলাটি করেন।
মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, গত ১২ সেপ্টেম্বর রিয়াদ শহরের কুইন্স হাসপাতালের সামনে তার চা দোকান থেকে ৩৭ হাজার ২০০ টাকার সিগারেট বাকিতে নেয়। সিগারেট নেওয়ার পর টাকা না দিয়ে তালবাহনা করে। এক পর্যায়ে সোমবার বিকেলে রিয়াদ তাকে পাওনা টাকা নেয়ার জন্য মোবাইল ফোনে শহরের কাজীপাড়া চুয়াডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ডে যেতে বলে। সাবু সেখানে গেলে রিয়াদসহ তার সহযোগীরা ইজিবাইকে সাবুকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে বালিয়া ভেকুটিয়া গ্রামের একটি পুকুর পাড়ে আটকে রাখে। তারা সাবুর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তাকে মারপিট করে কাছে থাকা ৩ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। বার্মিজ চাকু ও ধারালো দা গলায় ধরে তার মোবাইল ফোনের বিকাশে থাকা ১০ হাজার টাকা তাদের মোবাইল বিকাশে নিয়ে নেয়। বাকি টাকা না পেলে সাবুকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়। সাবু ঘটনাটি তার মামা নূর ইসলামকে জানালে নুর ইসলাম তার মোবাইল ফোনের বিকাশ থেকে ৭ হাজার টাকা ও মাইক্যামের মাধ্যমে আরো ২ হাজার ১০০ টাকা প্রদান করে তাদের বিকাশ নাম্বারে পাঠান। পরে সোমবার রাত ৯টায় সাবুকে ছেড়ে দেয়া হয়। সাবু ছাড়া পাওয়ার পর কোতয়ালি থানায় এসে বিষয়টি জানালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে শামিমকে আটক করে।

মন্তব্য
Loading...