ধর্ষণ ঠেকাতে আমরা কতটুকু আন্তরিক?

0 ৪১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণের পর দেশব্যাপী প্রতিবাদ গড়ে উঠেছিল। ওই ধর্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছিল ঠিকই, কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে ধর্ষকদের বিরুদ্ধে কোনো কঠোর সিদ্ধান্তের কথা বলা হয়নি। যতদিন ধর্ষকদের বিরুদ্ধে কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়া না হবে, ধর্ষকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা না হবে, আমরা যতদিন এই মানবতাবর্জিত অপরাধ বন্ধে আন্তরিক না হবো ততদিন মনে হয় অব্যাহতভাবে এ জঘন্য অপরাধটি চলতে থাকবে। তাই যদি না হবে তাহলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণের পর যে প্রতিবাদে দেশের মানুষ সোচ্চার হলো তারপরও দেশে ধর্ষণ বন্ধ হলো না কেন? গণমাধ্যমে খবর এসেছে, যশোরের অভয়নগরে গত ১৩ সেপ্টেম্বর এক কিশোরী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। ওই কিশোরী তার ২ বছরের ভাগ্নেকে নিয়ে নওয়াপাড়া পৌর এলাকার গুয়াখোলায় বড় বোনের শ্বশুরবাড়ি থেকে নিজেদের বাসায় ফিরছিল। ওই হাসান আলী ও হাবিব নামে দুই দুই কিশোরীটিকে ধর্ষণ করে।
সংবাদপত্র হাতে নিলেই ধর্ষণের খবরটা চোখে পড়ে। এর অর্থ এই যে, জঘণ্য অপরাধটির পরিমাণ এত বেড়েছে, যাকে বাদ রেখে কোনো পত্রিকা প্রকাশ যেন অপূর্ণাঙ্গ থেকে যায়। অনেকে মতামত দিচ্ছেন কুসংবাদ প্রকাশ না করাই ভালো। আমরা এ মতের বিপক্ষে নই। কিন্তু বিষয়টা যদি গণমাধ্যমে না আসে তাহলে তো সামাজিক এ চিত্রটা লোকচক্ষুর অন্তরালে থেকে যাবে, বোঝাই যাবে না। অপরাধের খবর গণমাধ্যমে প্রকাশ হচ্ছে বলেই আজ জনগণ এর বিরুদ্ধে সোচ্চার হচ্ছে। গণমাধ্যম ধর্ষকদের অমানুষ হিসেবে অবিহিত করে। আসলে তারা মনুষ্য সমাজের অন্তর্ভুক্ত নয়। এদের সভ্য মানুষের সমাজে বাসের কোনো অধিকার নেই। তাদেরকে সে অধিকার দেয়াও ঠিক নয়।
এমনিভাবে প্রতিনিয়ত ধর্ষণের যেসব ঘটনা ঘটছে তা নিয়ে প্রতিদিন নিবন্ধ লেখাও সমস্যার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু না লিখলেও নয়। ধর্ষণ প্রতিরোধ করা না হলে একদিন সমাজের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে যাবে। এমন কঠিন অবস্থায় পৌছার আগেই রাষ্ট্রকে ব্যবস্থা নিতে হবে। যে হারে ধর্ষণ বাড়ছে তা বন্ধ হবে না বলে নৈরাশ্যবদীরা মন্তব্য করে থাকে। আমরা তাদের সাথে একমত নই। কারণ ধর্ষকের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গৃহীত হলেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসবে। দেড় হাজার বছর আগে আমাদের দেশের চেয়ে আরবের অবস্থা খারাপ ছিল। ধর্ষকদের বিরুদ্ধে কঠোরতম আইন প্রণীত হওয়ায় সে অবস্থার পরিবর্তন হয়। আমাদের দেশের উপযোগী করে সেরূপ কঠোর আইন হলে দেশটি নিষ্কলুষ আবাসভূমিতে পরিণত হবে তাতে কোনো সন্দেহ থাকার কথা নয়।

মন্তব্য
Loading...