জীবননগরে ফসলি জমিতে সৌরবিদ্যুৎ প্লান্ট নির্মাণের প্রতিবাদে মানববন্ধন

0 ৫১

জীবননগর প্রতিনিধি

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর মাঠে তিন ফসলি জমিতে একটি বিদেশি কোম্পানি সৌরবিদ্যুৎ প্লান্ট নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। কৃষি জমিতে পাওয়ার প্লান্ট নির্মাণে এলাকাবাসীর জোর আপত্তির পরও প্রভাবশালী একটি মহল সেখানে সৌরবিদ্যুৎ প্লান্ট নির্মাণ করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। শনিবার বিকেলে প্রতিবাদে এলাকার কৃষকরা মানববন্ধন করেছেন। একই দিন বিকেলে কোম্পানির একজন প্রতিনিধিসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের কয়েক ব্যক্তি মতবিনিময় করতে গেলে গ্রামবাসী তাদের সাফ জানিয়ে দিয়েছেন এখানে এটা করা যাবে না। তারা বলেন, একমাত্র অবলম্বন ধ্বংস হতে দেব না।
সাবেক ইউপি সদস্য জেহের আলী, শওকত আলীসহ একাধিক কৃষক অভিযোগ করে বলেন, এলাকার একটি প্রভাবশালী মহল তাদের নিজেদের লাভের কথা চিন্তা করে আমাদের একমাত্র ফসলি মাঠে বিদ্যুতের প্লান্ট করতে চাচ্ছে। যুক্তি দেখানো হচ্ছে, ১০০-১৫০ লোকের কর্মসংস্থান হবে। তাহলে বাকি ৫-৬ হাজার মানুষের কি হবে?
গ্রামবাসী জানান, শনিবার বিকেলে কৃষ্ণপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে গ্রামবাসীর সাথে মতবিনিময় করতে আসেন কোম্পানির কান্ট্রি ডিরেক্টর জাকির হোসেন, জীবননগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোর্তুজা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ অমল, আওয়ামী লীগ নেতা শাহিনুর মাস্টার, রাজ্জাক শাহ, রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ শাহ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। তারা আমাদেরকে বলেন, জমি আপনাদের। আপনারা জমি দিলে প্লান্ট নির্মাণ হবে। না দিলে হবে না। আমরা তাদের বলি, আমরা জীবন দেব তো জমি দেব না। কিন্তু এখন শুনছি আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হবে।
এ ব্যাপারে রায়পুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ শাহ বলেন, আমি মতবিনিময় অনুষ্ঠানে ছিলাম। আমার বক্তব্যে আমি বলেছি এলাকাবাসী না চাইলে প্লান্ট হবে না। আমি এলাকাবাসীর মতামতের বাইরে যেতে পারি না। তবে বিষষটি উভয়পক্ষকে ভেবে দেখা দরকার।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সারমিন আক্তার বলেন, কৃষ্ণপুর মাঠের জমি আবাদি। সেখানে ভুট্টা, চিনাবাদামসহ সব ধরনের আবাদ হচ্ছে। সেখানে সৌরবিদ্যুৎ প্লান্ট হওয়া না হওয়ার ব্যাপারটা কৃষি বিভাগের নয়।

মন্তব্য
Loading...