জীবননগরে পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় জেরে স্ত্রীকে নির্যাতন

৬৮

জীবননগর প্রতিনিধি

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার বাড়ান্দী গ্রামে স্বামীর পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে পুলিশ পাষ- স্বামীকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। ঘটনাটি বুধবার বিকেলের। নির্যাতনের শিকার গৃহবধূকে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
মামলার বিবরণে জানা যায়, জীবননগর উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের বাড়ান্দী মাঠপাড়ার মৃত জাহাঙ্গীর আলমের মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌসের (২৪) ১১ বছর আগে বিয়ে হয় একই গ্রামের মির্জাপাড়ার ওয়াজেদ আলী খানের ছেলে রফিকুল ইসলামের (৩২)। বিয়ের কিছুদিনের মাথায় যৌতুকের দাবিতে নানাভাবে রফিকুল তার স্ত্রীকে নির্যাতন করতে থাকেন। তাদের দাম্পত্য জীবনে তমা (৯) নামের একটি কন্যা রয়েছে। মেয়ের অমানুষিক নির্যাতন দেখে সহ্য করতে না পেরে বাবা জাহাঙ্গীর গত আট মাস আগে স্ট্রোকে মারা যান। সে ঘটনায় আইন-আদালত করা হলেও মেয়ের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে মামলাটি আপোশে নিস্পত্তি হয়ে যায়।
এদিকে রফিকুল ইসলাম ঘরে স্ত্রী-সন্তান রেখে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। স্বামীর পরকীয়ার প্রতিবাদ করেন স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস। এতে তাদের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হয়। এক পর্যায়ে রফিকুল তার স্ত্রীর নিকট তিন লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। টাকা দিতে না পারলে স্ত্রীকে তালাকের হুমকি দেন। বুধবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে যৌতুকের টাকা চাওয়া নিয়ে কথাকাটাকাটি শুরু হলে স্বামী রফিকুল, তার বাবা ওয়াজেদ ও বন্ধু শওকত আলী ক্ষিপ্ত হয়ে অন্তঃসত্ত্বা জান্নাতুল ফেরদৌসীকে এলোপাতাড়িভাবে মারপিট করেন। গৃহবধূ জান্নাতুল ফেরদৌসী মারাত্মকভাবে আহত হলে তারা তাকে পাশের মাঠের মধ্যে ফেলে আসেন।
নির্যাতিত গৃহবধূকে পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে জীবননগর হাসপাতালে ভর্তি করেন। এদিকে স্বামী রফিকুল রায়পুর বারইপাড়াই তার পরকীয়া প্রেমিকাকে নিয়ে আপত্তিকর অবস্থায় জনতার হাতে আটক হয়। তাদের থানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়।
রায়পুর ইউনিয়ন পরিষদের সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বার আব্দুল মালেক বলেন, রফিকুল ইসলামের চরিত্র খুবই খারাপ।
জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম বলেন, গৃহবধূ জান্নাতুল ফেরদৌসের মা রোজিনা খাতুন রফিকুল ইসলামকে প্রধান আসামি করে তিনজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। স্বামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মন্তব্য
Loading...