বাঘারপাড়ার ধুপখালি প্রাথমিক বিদ্যালয় সভাপতির বিরুদ্ধে গাছ বিক্রির অভিযোগ

১১৬

বাঘারপাড়া পৌর প্রতিনিধি

যশোরের বাঘাপাড়ার একটি বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতির বিরুদ্ধে নিয়ম বহির্ভূতভাবে গাছ বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকেরও যোগসাজশও রয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ধুপখালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আলমঙ্গীর সিদ্দীকি সম্প্রতি পরিচালনা পরিষদের সভায় ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত গাছ ছাটায়ের রেজুলেশন করে। তিনি এ রেজুলেশনের বলে গত দুই দিন ধরে পুরাতন কয়েকটি রেন্টি গাছের বড় বড় ডাল কেটে বিক্রির প্রস্তুতি নেন। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ঝড়ে যে কয়েকটি ডাল ক্ষতিগ্রস্ত হয় তার থেকে কয়েক গুন বেশি ডাল কাটা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে প্রধান শিক্ষক শামিমা সুলতানার প্রত্যক্ষ মদদ রয়েছে। মঙ্গলবার নির্বাহী অফিসার ঘটনাস্থলে এসে কোনো কাঠ না সরানোর জন্য সভাপতি আলমঙ্গীর সিদ্দীকিকে নির্দেশ দিয়ে যান। অথচ বুধবার ভোর সকালে আলমঙ্গীরের উপস্থিতিতে প্রায় দুইশ মণ জ্বালানি কাঠ ও কয়েকটি লগ ট্রাকে উঠিয়ে নেওয়া হয়।
মঙ্গলবার বিকেলে সরেজমিন দেখা গেছে, চারজন শ্রমিক ওই স্কুলের সামনে বড় বড় কয়েকটি ডাল কাটছে। স্কুল গেটের সামনে ডালগুলো জড়ো করে রাখা হয়েছে। স্থানীয়রা দাবি করছেন ওই ডালগুলোর বাজারমূল্য আনুমানিক অর্ধলক্ষ টাকা।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামীমা সুলতানা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভায় ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত গাছের ডাল ছাটাইয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিষয়টি শিক্ষা অফিসের অনুমোদন না নিয়ে বাস্তবায়ন করা ঠিক হয়নি। বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় আমি খোঁজ নিতে পারিনি। ডাল কাটার বিষয়টি আমি জানতে পেরে বিক্রির জন্য নির্বাহী অফিসারের নিকট আবেদন করেছি।
পরিচালনা পরিষদের সভাপতি আলমঙ্গীর সিদ্দীকি বলেন, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভার সিদ্ধান্ত বলে গাছের ডাল কাটার ক্ষমতা রয়েছে। সেই অনুযায়ী জ্বালানি কাঠ বিক্রি করা হয়েছে। কিছু ব্যক্তি বিষয়টি নিয়ে অহেতুক ঝামেলা সৃষ্টি করছে।
যোগাযোগ করা হলে বাঘারপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানিয়া আফরোজ বলেন, বিষয়টি জানার পর আমি মঙ্গলবার ধুপখালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যায়। সেখানে গিয়ে দেখতে পায় অতি পুরাতন কয়েকটি রেন্টিগাছের বড় বড় ডাল কাটা হয়েছে। আমি উপস্থিত মানুষদের বলে আসি এটি নিয়ম মেনে বিক্রি করতে হবে। তার আগে যেন একটি ডালও এখান থেকে না সরে। জ্বালানি বিক্রির বিষয়ে তিনি বলেন, ঘটনার সত্যতা পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য
Loading...