যশোরে করোনা উপসর্গ নিয়ে আরো একজনের মৃত্যু

৫৪

নিজস্ব প্রতিবেদক

যশোরে আইসোলেশন ইউনিটে করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি থাকা হারুন সর্দার (৫৬) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। রোববার সকালে এই ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মোট ১৯ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) আরিফ আহমেদ। মৃত হারুন সর্দার সদর উপজেলার ঘোপ সেন্ট্রাল রোড এলাকার আফিল উদ্দিনের ছেলে।
যশোর পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শেখ মোকছিমুল বারী বলেন, প্রায় ১০ দিন আগে নিহত হারুন মাদারীপুর জেলায় গিয়েছিলেন। কারণ সেখানে তার বোন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছিলেন। সেখান থেকে যশোরে ফিরে আসার পর জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। প্রথমে তিনি এসব গোপন করে ঘুরে বেড়িয়েছেন। অবস্থার অবনতি হলে স্বজনরাও তার বাড়িতে আসেন। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। কোভিড-১৯ প্রটোকল অনুসারে সকল পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।
নিহতের স্বজনরা জানান, হারুন জ্বর, সর্দি ও কাশিতে ভুগছিলেন। শ্বাসকষ্ট শুরু হলে রোববার ভোরের দিকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে করোনা আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।
২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) আরিফ আহমেদ বলেন, হারুন সর্দার রোববার ভোরের দিকে জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে আসেন। করোনা উপসর্গ থাকায় তাকে আইসোলেশনে ভর্তি করা হয়েছিল। সকালে তার মৃত্যু হয়। নিহতের শরীর থেকে নমুনা নিয়ে পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে। সতর্কতার সঙ্গে মরদেহ দাফনের জন্য তার স্বজনদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে যশোর জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মোট ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

মন্তব্য
Loading...