বেনাপোলকে জীবাণুমুক্ত করতে মেয়র আশরাফুল আলম লিটনের নন্দিত উদ্যোগ

0 ১১৭

বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক বেনাপোল পৌরমেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেছেন, রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রবেশদ্বার বেনাপোল স্থলবন্দর। এ পথে নিয়মিত দেশি-বিদেশি পর্যটক যাতায়াত করেন। তাই এ বন্দর এলাকা জীবাণুমুক্ত সময়ের প্রয়োজন। তাই বেনাপোল পৌরসভার উদ্যোগে শহরের অলিগলি হেক্সোসল দিয়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বেনাপোল পৌরসভা চত্বরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ওষুধ ও স্প্রে মেশিনের সিলিন্ডার বিতরণ ও পৌর এলাকায় জীবাণুুমুক্তকরণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। মঙ্গলবার সকালে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ প্রবেশদ্বার বেনাপোলকে জীবাণুমুক্ত করতে এ উদ্যোগ গ্রহণ করেন তিনি।
তিনি আরো বলেন, বেনাপোল শহর সীমান্ত এলাকায় হওয়ায় এপথে দেশি-বিদেশি পাসপোর্টযাত্রীসহ আসে ভারত থেকে আমদানি পণ্যবাহী শত শত ট্রাক। তাই তাদের মাধ্যমে যাতে জীবাণু প্রবেশ করতে না পারে; সেজন্য পৌরসভার সকল জায়গায় হেক্সোসল দিয়ে জীবাণুমুক্ত করতে কাজ করবে কর্মীরা। পৌরসভার তত্ত্বাবধায়নে হেক্সোসল দিয়ে রিকশাভ্যান, গাড়িসহ দূর-দূরান্ত থেকে আসা পরিবহন ও পৌরসভার মার্কেট, মাছবাজার কাঁচাবাজার, মাংসবাজারসহ সকল অলিগলি স্প্রে করা হবে। প্রতিদিন এ কার্যক্রম চলবে বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, আজ পৃথিবীব্যাপী মানবতার বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। মানুষ আজ বিপন্ন। এই ভাইরাসে মানুষ মারা যাচ্ছে। আর স্বজনরা সেই মারা যাওয়া প্রিয়জনদের ঠিকমত দাফন করতে পারছে না। এটা অত্যন্ত বেদনাদায়ক।
এসময় বেনাপোল পোর্ট থানা, স্থলবন্দর, কাস্টমস ও ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষকে বেনাপোল পৌরসভার পক্ষ থেকে হেক্সোসল দিয়ে জীবাণুমুক্ত করার জন্য স্প্রে মেশিনের সিলিন্ডার ও ওষুধ বিতরণ করা হয়। আর পৌরসভার পক্ষ থেকে বেনাপোল চেকপোস্ট থেকে পৌর এলাকার সকল স্থানে জীবাণুমুক্ত করতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার জন্য ৩০টি স্প্রে মেশিন নামানো হয়।
বেলা সাড়ে ১১টার সময় মেয়র লিটন এর তত্ত্বাবধায়নে বেনাপোল বাহাদুপুর মোড়, দুর্গাপুর মোড়, চেকপোস্ট এলাকায় পরিচ্ছন্ন রেখে জীবাণুুমুক্ত করতে কর্মীদের স্প্রে করতে দেখা যায়। এ সময় তিনি পরিচ্ছন্নকর্মীদের দিকনির্দেশনা দেন নিজে।

মন্তব্য
Loading...